শনিবার, ২৫ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিশ্বরেকর্ড! ৪০টির মধ্যে ৩৮টিই নিলেন স্পিনাররা



স্পোর্টস ডেস্ক:: উপমহাদেশীয় উইকেট সবসময় স্পিনারদের বাড়তি সুবিধা দেয়, এমনটা সবারই জানা। কিন্তু উপমহাদেশীয় দলকে বাইরে থেকে এসে স্পিনেই ঘায়েল করার নজির ক্রিকেট ইতিহাসে খুব একটা পাওয়া যাবে না। এই বিরল কীর্তিই করে দেখিয়েছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল।

শ্রীলঙ্কার মাটিতে, শ্রীলঙ্কারই সাজানো স্পিন গালিচায়, স্পিনারদের দিয়েই ম্যাচ জিতে নিয়েছে সফরকারীরা। ম্যাচে স্বাগতিক লংকানদের দুই ইনিংসে মোট ২০ উইকেটের ১৯টিই নিয়েছেন স্পিনাররা, অন্যটি ছিলো রান আউট। ইংল্যান্ডের দুই ইনিংসের ১৯ উইকেট নিয়েছে লঙ্কান স্পিনাররাও। আর এতেই হয়ে গিয়েছে বিশ্বরেকর্ড!

টেস্ট ক্রিকেটের প্রায় দেড়শ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম কোনো ম্যাচে ৪০ উইকেটের মধ্যে ৩৮টিই নিলেন স্পিনাররা। শ্রীলঙ্কার ২০ উইকেটের একটি ছিলো রানআউট, ইংল্যান্ডের ২০ উইকেটের একটি নিয়েছেন সুরঙ্গা লাকমল।

এছাড়া দুই ইনিংসে ইংলিশ স্পিনারদের মধ্যে জ্যাক লিচ ৮ (৩+৫), মঈন আলি ৬ (২+৪), আদিল রশিদ ৪ (৩+১) ও জো রুট নিয়েছেন ১টি উইকেট। লঙ্কান স্পিনারদের মধ্যে দিলরুয়ান পেরেরা ৭ (৪+৩), আকিলা ধনঞ্জয়া ৮ (২+৬) ও মালিন্দা পুষ্পকুমারা নিয়েছেন ৪টি (৩+১) উইকেট।

টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এতদিন ধরে এক ম্যাচে স্পিনারদের নেয়া সর্বোচ্চ উইকেটের রেকর্ড ছিলো ৩৭টি। ১৯৬৯ সালে ভারতের নাগপুরে এ রেকর্ড গড়েছিল স্বাগতিক ভারত ও নিউজিল্যান্ড। তালিকার পরের তিনটি রেকর্ডও হয়েছে ভারতেই।

১৯৫৬ সালে নাগপুর টেস্টে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার স্পিনাররা ৩৫টি, ১৯৮৭ সালে ব্যাঙ্গালুরু টেস্টে ভারত ও পাকিস্তানের স্পিনাররা ৩৫ এবং ২০১৫ সালের মোহালি টেস্টে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিনাররা মিলে নিয়েছিলেন ৩৪টি উইকেট।

এ তালিকায় রয়েছে ২০১৭ সালে বাংলাদেশ বনাম অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার ঢাকা টেস্টের নামও। অস্ট্রেলিয়াকে ২০ রানে হারানোর ম্যাচে স্বাগতিক বাংলাদেশ ও সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার স্পিনাররা নিয়েছিলেন ৩৪টি উইকেট। ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডকে ১০৮ রানে হারানোর ম্যাচে দুই স্পিনাররা মিলে তুলে নিয়েছিলেন ৩২টি উইকেট।